একজন স্বামীকে হত্যায় স্ত্রীর পুরুষ্কার পাওয়ার গল্প

রোজ জোড়জবস্তি স্ত্রীকে দিয়ে দেহব্যবসা করায় আক্কেল আলী ।
এতে তার স্ত্রী তার উপরে নারাজ । আক্কেল আলীর একটি রিক্সার গ্যারেজের পাশেই ছিল তার চায়ের দোকান । আক্কেলআলী প্রতিদিন সকালে যান দোকানে আছেন সেই রাত পহরে ।আর আসার সময় প্রতিদিনিই তার সঙ্গে করে দুই তিনজন বন্ধু নিয়ে আছেন । আর বাসায় এসে আক্কেলআলী তার স্ত্রীকে তার বন্ধুদের সাথে মেলামেশা করতে প্রস্তাব দেন । কিন্তু স্ত‍্রী নাকচ করে দেন । এতে আক্কেল আলী ও তার বন্ধুরা মিলে একদিন আক্কেলআলীর স্ত্রী কহিনুরকে জোড় করে ধর্ষণ করতে চান । সেখানে আক্কেলআলীরা চার পাঁচজন হওয়াতে স্ত্রী কহিনুরের পরাজয় ঘটে এবং তার নারীসত্বা হারাতে হয় । তার এর প্রতিশোধ হিসেবে একদিন রাতে স্বামী শুয়ে ঘুমিয়ে আছেন আর সে সুযোগে স্ত্রী তার স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে দেন । এতে স্বামী যন্ত্রণায় চেকরাতে থাকেন । আশে পাশের লোকজন তার চেচামেচি শুনে যখন ছুঁটে আছেন তখন আক্কেলআলীর অবস্থা মারাক্ত । তারা কজন মিলে আক্কেল আলীকে হাসপাতালে ভর্তি করেন । আর কজন মিলে স্ত্রী কহিনুরকে পুলিশ ডেকে এনে তাদের হাতে তুলে দেন । এতে পুলিশ আক্কেলআলীর স্ত্রী কহিনুরকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে নিয়ে যান । পুলিশ কহিনুরের কাছে ঘটনা জানতে চাইলে কহিনুর পুলিশকে বলে হ আমি আমার স্বামীর পুরুষঅঙ্গ কেঁটে ফেলেছি । আর তার কারন হল আমি রাজি না থাকা সর্ত্বেও আমার স্বামী আমায় দিয়ে জবরদস্তি দেহব্যবসা করিয়েছেন । তাই আমি এ কাজ করেছি । আক্কেলআলী মারা যান স্ত্রী স্বামী হত্যার দায়ে জেল হওয়ার পরিবর্তে একলক্ষ টাকা পুরুষ্কার পান ।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s